বিবরণ:

প্রকৃতির মনমাতানো সৌন্দর্য উপভোগ করার পাশাপাশি দুঃসাহসী ট্রেকিং অভিযানের স্বাদ গ্রহণ করতে চাইলে বেঁছে নিতে পারেন রাঙামাটির ধুপপানি ঝর্ণাটিকে। রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নের ওড়াছড়িতে রয়েছে অপরূপ এই শ্বেত পানির ঝর্ণা। ঝর্ণার উৎসস্থল ধুপপানিপাড়ায় বসবাসকারী তঞ্চঙ্গ্যা উপজাতিদের ভাষায় ধুপ শব্দের অর্থ সাদা আর পানি হলো ঝর্ণার পানি। অর্থাৎ ধুপপানি বলতে সাদা পানির ঝর্ণাকে বোঝায়। ১৫০ মিটার উঁচু থেকে তীব্রবেগে ঝরে পড়া ঝর্ণার স্বচ্ছ পানির শুভ্র সৌন্দর্যের জন্যই এই ঝর্ণাকে ধুপপানি নামকরণ করা হয়।

ধুপপানি ঝর্ণা সম্পর্কে আগে খুব কম মানুষই জানতো। ২০০০ সালের দিকে এক বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ধ্যান করার জন্য এই স্থানটিকে বেঁছে নেন। সাধু দর্শন এবং তাঁর সেবা করার উদ্দেশ্যে স্থানীয় মানুষদের এখানে আনাগোনা শুরু হয়। পরবর্তীতে লোকমুখে এই স্থানটির পরিচিতি ছড়িয়ে পড়ে। এখনও প্রতি রবিবারে বৌদ্ধ ভিক্ষু তাঁর সাধনা স্থান থেকে ঝর্ণার নিচে নেমে আসেন এবং স্থানীয় মানুষদের পক্ষ থেকে দেয়া আহার গ্রহণ করেন। প্রায় দুই কিলোমিটার দূর থেকে ধুপপানি ঝর্ণার পানি আছড়ে পড়ার শব্দ শুনতে পাওয়া যায়। ঝর্ণার পানি পান করতে আশপাশ থেকে হরিণ, বুনো শুয়োর, বনবিড়াল, ভাল্লুক এমনকি বাঘও আসে।